রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৩:৫৮ অপরাহ্ন

শিল্পী সমিতির নির্বাচন বাধা :মৌসুমী

বিনোদন ডেস্ক:
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৫ অক্টোবর, ২০১৯
  • ২১
চলচ্চিত্রের সফল মুখ মৌসুমী। আগামী ২৫শে অক্টোবর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দ্বিবার্ষিক (২০১৯-২১) মেয়াদি নির্বাচন। আসন্ন এই নির্বাচনকে ঘিরে চলছে নানা  প্রস্তুতি। অন্য অনেকের মতো মৌসুমীও নির্বাচন করতে যাচ্ছেন। এবার নির্বাচনে দু’টি প্যানেল হওয়ার কথা ছিল। একটি মৌসুমী-ডি এ তায়েব ও অন্যটি মিশা সওদাগর-জায়েদ খান প্যানেল। একটি প্যানেল থেকে সভাপতি পদে মৌসুমী এবং সাধারণ সম্পাদক পদে ডি এ তায়েব নির্বাচন করবেন বলে চূড়ান্ত হয়েছিল। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার বিকালে এফডিসিতে দেখা গেল ভিন্ন চিত্র।

কোনো প্যানেল নয়, স্বতন্ত্র দাঁড়াচ্ছেন মৌসুমী। প্রথমে  মৌসুমী-তায়েব প্যানেলের সঙ্গে অন্যান্য পদে নূতন, ফেরদৌস, রিয়াজ, পূর্ণিমা, পপিসহ অনেকেরই নির্বাচন করার কথা ছিল। নির্বাচনকে ঘিরে কয়েকটি প্রস্তুতি মিটিংও হয়েছিল। কিন্তু হঠাৎ করে কেন স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচন করতে যাচ্ছেন মৌসুমী? এর জবাবে তিনি বলেন, স্বতন্ত্রভাবে সভাপতি পদে মনোনয়নপত্র জমা দিলাম। প্যানেল করতে পারলাম না। কারণ, আমি এখন একা। যারা আমাকে সভাপতি করে প্যানেল তৈরিতে পরামর্শ ও সাহস দিয়েছিলেন, তারা সরে গেছেন। মৌসুমী আরো বলেন, অনেক বড় চমক দিয়েই একটি প্যানেল প্রস্তুত করেছিলাম। কিন্তু কয়েক দিন ধরে একটি মহল আড়াল থেকে বাধা সৃষ্টি করে আসছিল। আমার সঙ্গে যারা ছিলেন, তাদেরকে নির্বাচন না করতে প্রভাবিত করেছেন। এমনকি আমাকেও সরে যাওয়ার জন্য বলা হয়েছে। তবে আমি আগে থেকেই যেহেতু ঘোষণা দিয়েছি, তাই সরে যাচ্ছি না। নির্বাচন করছি। ৩রা অক্টোবর বেলা তিনটার পর ওমর সানীকে সঙ্গে নিয়ে বিএফডিসিতে নির্বাচন কমিশনারের কার্যালয়ে আসেন মৌসুমী। সঙ্গে তার প্যানেলের সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হতে চাওয়া ডি এ তায়েবও ছিলেন না। নির্বাচন ঘিরে বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে মৌসুমী কলেন, অভিভাবক ও জ্যেষ্ঠ শিল্পীদের কাছে আমার অনুরোধ, নির্বাচনে আমাকে সরে দাঁড়ানো বা প্রতিহত করার জন্য যে অপচেষ্টা চলছে, তা যেন না হয়। একটি প্যানেল করতে দিলে কিছুই ক্ষতি হতো না। এবারের নির্বাচন কেমন হবে বলে মনে হয়? মৌসুমী জবাবে বলেন, আমার কাছে মনে হয়েছে, এটি কোনো জাতীয় নির্বাচন না। তারপরও বড় বড় জায়গা থেকে বলা হচ্ছে, সরে যাও। ঠিক আছে আমি সরে যাব। কিন্তু অন্যায়ভাবে যেসব শিল্পীর ভোটাধিকার হরণ করা হয়েছে, তাদের ভোটাধিকার ফিরিয়ে দেওয়া হোক। এটা কাম্য নয়। কারণ শিল্পী সমিতি একটি পরিবার। এমনটিই জেনেছি সব সময়। কিন্তু এবার নির্বাচনে এসে অনেক কিছুই দেখছি। যা একজন শিল্পী হিসেবে প্রত্যাশা করিনি আমি। নারীপ্রধান ছবির কথা বলতে গেলে অনেক অভিনেত্রীর মধ্যে একজনের নাম অবশ্যই বলতে হবে। তিনি হচ্ছেন প্রিয়দর্শিনীখ্যাত মৌসুমী। সফল ছবির তালিকায় এই ধরনের গল্পের বেশকিছু ছবিতে কাজ করেছেন তিনি। ‘গরিবের রানী’, ‘লাট সাহেবের মেয়ে’, ‘বিদ্রোহী বধূ’,‘মোল্লাবাড়ির বউ’, ‘বউয়ের সম্মান’, ‘গোলাপী এখন বিলেতে’, ‘মেহের নিগার’, ‘খায়রুন সুন্দরী’, ‘লিডার’ এবং
সবশেষ ‘রাত্রীর যাত্রী’ ছবিতে তাকে নারীপ্রধান চরিত্রে অভিনয় করতে দেখেছেন দর্শকরা। সামনে মির্জা সাখাওয়াত হোসেনের ‘অর্জন ৭১’ ছবির কাজ করবেন মৌসুমী। এ ছবির বিষয়ে তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর অবদান উপজীব্য করে লেখা হয়েছে এই ছবিটির গল্প। চরিত্রের নাম ফিরোজা। একজন মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীর চরিত্রে অভিনয় করব। সামনে এ ছবির কাজ শুরু হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..