রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৩:৫৪ অপরাহ্ন

রপ্তানিমুখী সব খাতে একই সুবিধা দেয়ার পরামর্শ অর্থনীতিবিদদের

অনলাইন ডেস্ক:
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ৩৯

তৈরি পোশাক খাতের মতোই রপ্তানিতে প্রণোদনা চান পোশাক খাতের আনুসঙ্গিক পণ্য প্রস্তুতকারকরা। করপোরেট কর চান পোশাক খাতের সমান।

তবে খাতভিত্তিক বিশেষ সুবিধা না দেয়ার পক্ষে অর্থনীতিবিদরা। তারা বলছেন, সরকারকে এমন কোনো পলিসি নিতে হবে, যেন একই রকম সুবিধা পায় রপ্তানিমুখী সব খাত। এক্ষেত্রে ডলারের বিপরীতে টাকার মান কমানোর পরামর্শ তাদের।

তৈরি পোশাক খাতের নিট, ওভেন, সোয়েটার ও টেক্সটাইল পণ্য রপ্তানিতে ৪ শতাংশ পর্যন্ত প্রণোদনা দেয়া হতো। চলতি অর্থবছরের বাজেট ঘোষণায় এ শিল্পের অন্য রপ্তানিকারকদের জন্যও নতুন করে ১ শতাংশ নগদ প্রণোদনা দেয়া হয়। করপোরেট করহার ১০ ও ১২ শতাংশই বহাল রাখা হয়।

কিন্তু এ ধরনের কোনো সুবিধা নেই পোশাক শিল্পের আনুসঙ্গিক পণ্য প্রস্তুত ও রপ্তানিকারকদের। তাদের অভিযোগ, প্রায় তিনগুণ বেশি ৩৫% হারে করপোরেট কর দিতে হয়। আবার রপ্তানিতেও নেই কোনো প্রণোদনা।

তৈরি পোশাক উৎপাদক ও রপ্তানিকারক ব্যবসায়ী সংগঠনের (বিজিএমইএ) সভাপতি আবদুল কাদের খান বলেন, সহযোগিতায় যে ভুল হয়েছিলো তার জন্য ছাড় দিতে পারি কিন্তু যে সোর্স দেয়া হয়েছে তা খুব পীড়াদায়ক।

তাদের দেয়া তথ্য মতে, পোশাক খাতে দরকারি জিপার, বোতাম, লেভেল, ট্যাগ, কার্টনসহ ৩৫ ধরনের আনুষঙ্গিক পণ্যের প্রায় ৯৫ ভাগই তারা উৎপাদন করছেন। গেল অর্থবছরে এ খাতের রপ্তানি আয় ছাড়িয়েছে ৭ বিলিয়ন ডলার। যার মধ্যে পোশাক খাতের মাধ্যমে ৮০ শতাংশ, সরাসরি ২০ শতাংশ ও বাকিটুকু এসেছে ওষুধসহ অন্য খাত থেকে।

তবে নগদ প্রণোদনা কিংবা করপোরেট করহার কমানোর কোন যৌক্তিকতা দেখছেন না অর্থনীতিবিদ তৌফিকুল ইসরাম খান। তিনি বলেন, জনগণের টাকা নিয়ে প্রণোদনা দেয়ার যে সংস্কৃতি তা থেকে বের হয়ে আসতে হবে।

তিনি আরো বলেন, বাজেটে নগদ প্রণোদনার দিকে দৃষ্টিভঙ্গি না দিয়ে বৈদেশিক লেনদেনের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে দেশের মুদ্রার মান কিছুটা কমিয়ে আনতে পারি তাহলে, সব খাতই সমানভাবে প্রণোদনা পাবে।

কারিগরি দক্ষতা ও পণ্যের মান পরীক্ষাগারের উন্নয়নের পরামর্শ এ খাত সংশ্লিষ্টদের।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..