বৃহস্পতিবার, ০২ এপ্রিল ২০২০, ০৫:৫৩ পূর্বাহ্ন

বন্ধ থাকবে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানও : মন্ত্রিপরিষদ

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৪ মার্চ, ২০২০
  • ১৩

করোনাভাইরাস সংক্রমণ মোকাবিলায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থার অংশ হিসেবে ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। এ সময় বেসরকারি প্রতিষ্ঠানও বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। ২৩ মার্চ, সোমবার বিকেলে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিয়মিত খোঁজ খবর রাখছেন ও নির্দেশনা দিচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রীর অফিসে দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক বিভাগটি সার্বক্ষণিক খোলা রয়েছে। করোনা মোকাবেলায় ওয়ার্ড পর্যায়ে গ্রাম পুলিশরাও কাজ করছে।

২৯শে মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। তার সামনে পেছনে ২৬শে মার্চের ছুটি ও নিয়মিত ছুটি মিলে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ১০ দিন ছুটি হচ্ছে।

এসময় তিনি আরো বলেন, ‘সরকারি অফিস বন্ধ থাকলেও খোলা থাকবে হাসপাতাল, জরুরি সেবা। সীমিত আকারে চলবে গণপরিবহণ।’

এছাড়া মঙ্গলবার থেকে সারাদেশে সেনা মোতায়েন করা হচ্ছে। তারা জেলা প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করবেন বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

উল্লেখ্য, দেশে করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত ৩ জন মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন ডাক্তার-নার্সসহ ৩৩ জন।

ইতোমধ্যে দেশের সব স্থানের জনসমাগম কমিয়ে ফেলার নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। বন্ধ করে দেয়া হয়েছে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ সবধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। সব ধরণের ধর্মীয়, সামাজিক অনুষ্ঠানের উপরেও দেয়া হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। বন্ধ করে দেয়া হয়েছে ভ্রমণ স্থানগুলোও।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। ছবি : সংগৃহীত

করোনাভাইরাস সংক্রমণ মোকাবিলায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থার অংশ হিসেবে ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। এ সময় বেসরকারি প্রতিষ্ঠানও বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। ২৩ মার্চ, সোমবার বিকেলে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিয়মিত খোঁজ খবর রাখছেন ও নির্দেশনা দিচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রীর অফিসে দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক বিভাগটি সার্বক্ষণিক খোলা রয়েছে। করোনা মোকাবেলায় ওয়ার্ড পর্যায়ে গ্রাম পুলিশরাও কাজ করছে।

২৯শে মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। তার সামনে পেছনে ২৬শে মার্চের ছুটি ও নিয়মিত ছুটি মিলে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ১০ দিন ছুটি হচ্ছে।

এসময় তিনি আরো বলেন, ‘সরকারি অফিস বন্ধ থাকলেও খোলা থাকবে হাসপাতাল, জরুরি সেবা। সীমিত আকারে চলবে গণপরিবহণ।’

এছাড়া মঙ্গলবার থেকে সারাদেশে সেনা মোতায়েন করা হচ্ছে। তারা জেলা প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করবেন বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

উল্লেখ্য, দেশে করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত ৩ জন মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন ডাক্তার-নার্সসহ ৩৩ জন।

ইতোমধ্যে দেশের সব স্থানের জনসমাগম কমিয়ে ফেলার নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। বন্ধ করে দেয়া হয়েছে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ সবধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। সব ধরণের ধর্মীয়, সামাজিক অনুষ্ঠানের উপরেও দেয়া হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। বন্ধ করে দেয়া হয়েছে ভ্রমণ স্থানগুলোও।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..