সোমবার, ০৬ এপ্রিল ২০২০, ১২:৩৮ অপরাহ্ন

পুলিশের বিরুদ্ধে গ্রেফতার বাণিজ্যের অভিযোগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৯ জুলাই, ২০১৯
  • ৯৪
রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে  পুলিশের সখ্যতার অভিযোগ তুলেছেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও এক ইউপি চেয়ারম্যান। সোমবার (৮ জুলাই) দুপুরে উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় জনপ্রতিনিধিরা এই অভিযোগ তুলে ধরেন।
বক্তাদের অভিযোগ,পুলিশ নিরীহ ও নিরাপরাধ যুবকদের আটক করে তার পকেটে মাদক ঢুকিয়ে বাণিজ্য করছেন। শাহজাদাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম খোকন অভিযোগ করে বলেন, শাহাজাদাপুর ইউনিয়নের দায়িত্বে থাকা এ এস আই গোপী সরকার স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তুলেছেন। ইউনিয়নের মলাইশ, নিয়ামতপুর, ধাউরিয়া ও শাহজাদাপুর গ্রামে তার অনেক আত্মীয় আছেন। ওইসব আত্মীয়দের কয়েকজনকে তিনি সোর্স নিয়োগ করেছেন। এসব সোর্সদের সহায়তায় তিনি মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের আটক করেন। সোর্সদের মাধ্যমেই চুক্তি করে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেন। তিনি গোপী সরকারকে ওই ইউনিয়ন থেকে প্রত্যাহার করার দাবি করেন।
সভায় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন ঠাকুর বলেন, মাদককে পুঁজি করে থানার কতিপয় পুলিশ নিরীহ যুবকদের হয়রানি করছে। কৌশলে বাণিজ্য করছেন। মাদকের বিরুদ্ধে অভিযানের নামে কিছু পুলিশ সদস্য যাকে সামনে পাচ্ছেন তাকেই আটক করেন। পরে কৌশলে ছেলেদের পকেটে ইয়াবা বা পুরিন্দা ঢুকিয়ে দিয়ে মাদক ব্যবসায়ী বা সেবনকারী সাজিয়ে চুক্তির মাধ্যমে বাণিজ্য করে তাদেরকে ছেড়ে দিচ্ছেন। এভাবে চলতে পারে না। তিনি পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসনকে এ বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখার অনুরোধ করেন।
সভায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এএসএম মোসা উপস্থিত পুলিশের প্রতিনিধির উদ্দেশে বলেন, পুলিশের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের বিষয়গুলো গুরুত্ব সহকারে নিয়ে তদন্ত দ্রুত ব্যবস্থা নিন।
এ ব্যাপারে সরাইল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নূরুল হক বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অভিযুক্ত এএসআই গোপী সরকার বলেন, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..