বৃহস্পতিবার, ০২ এপ্রিল ২০২০, ০৪:১৩ পূর্বাহ্ন

একই হেলমেট বার বার ব্যবহারে বাড়ছে করোনার ঝুঁকি

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৪ মার্চ, ২০২০
  • ১৪

সারাবিশ্বে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মহামারি রূপ ধারণ করেছে। এ পর্যন্ত ১৬ হাজারের বেশি মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। বিভিন্ন মাধ্যমে এই ভাইরাস দ্রুতই মানুষের শরীরে ছড়িয়ে পড়ছে। মোটরসাইকেলের হেলমেটের মাধ্যমেও এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার মারাত্বক ঝুঁকি রয়েছে।

বিশেষ করে অ্যাপসভিত্তিক রাইড শেয়ারিংয় ব্যবহারের ক্ষেত্রে। কারণ রাইড শেয়ারিংয়ে একই হেলমেট বারবার ব্যবহার করা হয়। আর এতে করে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি তৈরি হয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটির (বিএসএমএমইউ) সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডা. নজরুল ইসলাম এমন মন্তব্য করেন।

এ বিষয়ে ডা. নজরুল ইসলাম বলেন, ‘করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এমন একজন যাত্রী যদি রাইট শেয়ারিং করে এবং হেলমেট ব্যবহার করে পরবর্তী সময়ে একই হেলমেটটি পুনরায় অন্য যে কেউ ব্যবহার করলে তার আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি।’

তিনি আরো বলেন, ‘করোনাভাইরাস স্কিনের মাধ্যমে ছড়ায় না। শুধু চোখ, নাক ও মুখ দিয়ে প্রবেশ করে। তাই আক্রান্ত ব্যক্তি এই হেলমেটটি ব্যবহার করার পর হাত দিয়ে হেলমেটটি স্পর্শ করবে, সেই হাত দিয়ে নাক মুখ স্পর্শ করলে করোনা ছড়ানোর আশঙ্কা রয়েছে।’

জানা গেছে, রাজধানীতে অ্যাপসভিত্তিক বাইক শেয়ারিং চালকরা প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ জনকে বিভিন্ন গন্তব্যে পৌঁছে দেন। সবাই একই হেলমেট ব্যবহার করেন। তাদের অনেকেই এই হেলমেট থেকে করোনাভাইরাস ছড়াতে পারে এই বিষয়টি সম্পর্কে অনেকেই সচেতন নয়।

এ বিষয়ে বাইক চালক শাকিব মিয়া জানান, প্রয়োজনের তাগিদে রাইড শেয়ার করতে হয়। এখন একটু বেশি চাহিদা আছে। রাস্তায় যানজট নাই। অল্প সময়ে গন্তব্যে পৌঁছে যাই। টাকাও ভালো পাওয়া যায়। প্রতিদিন একই হেলমেট সবাই ব্যবহার করছে।

অতি প্রয়োজনীয় কোনো কাজ কর্ম না থাকলে বাইরে বের না হওয়ার কথা বলেছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর)। সংস্থাটির পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে শতর্ক করছেন

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..